ডোমেইন নাম কেনার আগে যা জানা ভিষন জরুরী !

ডোমেইন নাম কেনার আগে যা জানা ভিষন জরুরী !

- in Blogging, Scams
68
Comments Off on ডোমেইন নাম কেনার আগে যা জানা ভিষন জরুরী !

যেকোন প্রকার ডোমেইন নেম কেনার আগে যা জানা ভিষন জরুরী ! সে বিষয়েই আমার আজকের লেখা:

ডোমেইন আবার কি জিনিস? সে প্রসঙ্গে যাবার ইচ্ছা আমার নেই।যদি কারও জানা না থাকে যে ডোমেইন নেম কি জিনিস দয়া করে গুগল করে নিবেন।
এবারে মূল প্রসঙ্গে ফিরে আসছি, ডোমেইন নাম নেবার আগে সত্যিই কি কিছু জানার আছে ! হয়তো এ প্রশ্নে আমার লেখাকে পড়া থেকে কেও কেও বিরত থাকতেও পারেন।সেটা তার ব্যপার। আর যদি আপনার মনে হয় সত্যিই কিছু জানার আছে, তো আপনি আসুন আমার সাথে।

জানা টা কেন জরুরী ?
যে কোন কাজ আপনি যতক্ষন ঠিক ভাবে না জানবেন,ততক্ষন সেই কাজটি ঠিক ভাবে হবে না।
আগে জানলে পরে ঠকার সম্ভাবনা কম থাকে।
জানে বুঝে কাজ করলে কাজটা সহজ হয়ে যায়।
জানার পরেই একজন জ্ঞানী হয়।
না জানাটাই মূর্খতা।

ডোমেইন নাম কেনার আগে কি জানা জরুরী ?
হ্যা বলছি,
বাংলাতে “শুভাংকরের ফাকি” বলতে একটা কথা আছে। ঠিক সেই কথাটি বেশ কিছু ডোমেইন কোম্পানী ভালভাবেই নিজেদের মধ্যে পুষে রেখেছেন, আর কাস্টমারদের টাকাগুলো চুষে খেয়ে নিচ্ছেন।আপনি যদি সেটা না ধরতে পারেন তো আপনিও নিজের অজান্তে তাদের সেই শোষনের শিকার হচ্ছেন।আর আমি ঠিক সেই কথাগুলোই বলতে এসেছি।

কখন বুঝবেন আপনার সাথেও শুভাংকরের ফাকি হচ্ছে?
নীচে আমি একটা লিস্ট করলাম আপনাদের জন্য। যার থেকে বুঝে নিতে পারবেন, ডোমেইন নাম কেনার ব্যপারে আপনি কি ফাকিঁতে পড়ে আছেন নাকি পড়তে যাচ্ছেন। ঠিক আছে দেখে তবে দেখে নেওয়া যাক।

শুভাংকরের ফাকি :

  1. বর্তমান মূল্য ও ভবিষ্যত মূল্যের ব্যপক ব্যবধান : কিছু কোম্পানী হয়তো প্রথম বছরের জন্য চার্জ করবে ০১-০৮ ($01-08) ডলার, কিন্তু ভাল করলে খেয়াল করবেন, যে ঐ কোম্পানী আপনার পরবর্তি বছরের জন্য ডেমেইনে চার্জ নিচ্ছে ১৮-১০০ ($18-100+) ডলার।প্রথম বছরের লোকশান তো তারা পুরণ করলোই সেই সাথে প্রতি বছর আপনাকে বাশ দেবারও রাস্তা করে দিলো।
  2. কিছু কিছু ডোমেইন কোম্পানীর স্থায়ী কোন মূল্য (Fixed Rate) ধার্য্য করা নেই। এই বছর একটা  ডট.কম (.com) ডোমেইন এর জন্য চার্জ করছে ৮ ডলার, পরবর্তি বছরে নিচ্ছে ১৪ ডলার আর তারপরের বছর ১৮ থেকে ২২ ডলার।
  3. একটা ডোমেইন এর সাথে আরও কিছু বাড়তী ফিচারের প্রয়োজন হতে পারে যেমন, Premium DNS, Whois, DSEO, SSL Certificate,Domain Park ইত্যাদী।কোন কোন কোম্পনীর কাছে (Domain Name Providers) এই সার্ভিসগুলি নেই, অথবা থাকলেও তার জন্য নির্ধারিতের চেয়ে বেশী চার্জ কাটা হচ্ছে।
  4. Info Spamming : (ইনফো স্পামিং) ডোমেইন কেনার কিছুদিন পর দেখলেন ডোমেইন এর বিভিন্ন বিষয়ের উপড় অজ্ঞাত ইমেইল আসা শুরু হয়েছে, বুঝবেন আপনার কোম্পানীই আপনার দেয়া তথ্য লিক করে দিয়েছে।
  5. Fake Billing: আপনার ডোমেইন ্প্রদানকরী প্রতিষ্ঠান আপনাকে কিছু ফেক অফার দিতে পারে যেমন, Search Engine Listing, Directory Listing ইত্যাদী।বস্তুত সেগুলো সব ভুয়া আর থাকলেও বা তার বিশেষ কোন প্রয়োজন হয় না। এই সার্ভিস গুলো যারা শুধু ডোমেইন মার্কেটিং করে তাদের জন্যই প্রযোয্য, আপনার জন্য নয়।
  6. Fake Settings: আপনি একটা সার্ভিস অটো অফ করে দিলেন, অথবা আপনি আপনার ডোমেইন নামটি আর রিনিউ করতে চান না, কিন্তু মাস শেষে দেখলেন সেটি অটো রিনিউ হয়ে কার্ড থেকে অথবা পে-পাল থেকে টাকা কেটে নিয়ে গেছে।সেটিংস চেক করে দেখলেন অটো রিনিউ একটিভ হয়ে আছে ! আসলে আপনি তা করেন নি।

এরকম আরো অনেক ফাঁদে ফেলে কাস্টমারদের টাকা খেয়ে নেবার কোম্পানীর অনলাইনে অভাব নেই।তাই আপনাকে ঝামেলা এড়াতে আজই সতর্ক হতে হবে।উপড়ে উল্লিখিত বিষয় গুলি ভালভাবে মিলিয়ে ডোমেইন কেনা অথবা না কেনার সিধ্যান্ত নিতে হবে।এছাড়াও অনলাইনে আগে থেকেই কিছু বিশ্স্ত কোম্পনাী হিসাবে যাদের নাম আছে এমন কারও সাথে ডোমেইন সার্ভিস লেন-দেন করতে হবে। এ বিষয়ে আরও জানার জন্য আমার “ডোমেইন কিনবেন কোথা থেকে” লেখাটি পড়তে পারেন।

Facebook Comments

You may also like

Best Pro Blogger Templates To Make Your Blog Awesome !

ব্লগারের জন্য সর্বসেরা ৫টি থিমস: Best Pro Blogger